গিটহাব কোপাইলট – পার্সোনাল প্রোগ্রামিং সহযোগী

গুগল মেইলে কোন ইমেইল কম্পোজ করার সময় আমরা অনেকেই খেয়াল করে দেখছি যে একটা লাইন লেখা শুরু করলে সে পুরা লাইন সাজেস্ট করে। এই সাজেশনটা অনেক ক্ষেত্রেই এক্যুরেট হয়। মানে আমি যা লিখতাম, তাই অটো লিখে দেয়। আমরা যখন কোড লিখি, তখন যদি কোন কোড লেখা শুরু করার পরই পুরো লাইন বা পুরো ফাংশন আমাদের জন্য লিখে দিত, কেমন হত? গিটহাব কোপাইলট দিয়ে তাই করা সম্ভব। কোন কোড লেখা শুরু করলে আমাদের সাজেশন দিবে পুরো কোডব্লকটির।

যেমন আমাদের দরকার প্রাইম জেনারেট করার একটা ফাংশন। এখন একটা কমেন্ট লিখলাম Generate Primes অথবা ফাংশনটির নাম লিখলাম generate_primes, তাহলে সাথে সাথে আমাদের ঐ ফাংশনটি লিখে দিবে। দারুণ না? এতটুকু পড়ে মনে হতে পারে কোপাইলট বুঝি কোড অটোকমপ্লিট করে দেয়। তবে অটোকমপ্লিট শুধু একটা অংশ। গিটহাব কোপাইলট দিয়ে দারুণ সব কাজ করা যায়। একজন সত্যিকারের সহযোগীর মত কাজ করে।

এটা খুব সহজে কমেন্ট থেকেই কোড লিখে দেয়। আমরা কোন কোড ব্লকের শুরুতে সাধারণত কমেন্ট লিখি। কোপাইলট ঐ কমেন্ট থেকেই পুরো কোড ব্লক লিখে দিতে পারে। আবার একই প্রজেক্টে একই রকম কোড বার বার লিখতে হয়। কোপাইলট ঐ ধরণের কোড গুলো খুব সহজে অটোকমপ্লিট করে দিবে। এছাড়া কোড লেখার পর আমরা যদি চাই টেস্ট কেস লিখতে, কোপাইলট তাও লিখে দিবে। যদি অটোকমপ্লিট হওয়া কোড কোড আমাদের পছন্দ না হয়, তাহলে আমাদের অন্য কোড সাজেস্ট করবে। কোপাইলট যেহেতু আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স পাওয়ার্ড, তাই ও আপনার কোডিং স্টাইল বুঝতে পারবে। যখন বুঝবে আপনি যে স্টাইলে কোড লিখেন, তখন সে আপনার কোডিং স্টাইল অনুযায়ী কোড সাজেস্ট করবে।

গিটহাব কোপাইলট এখনো টেকনিক্যাল প্রিভিউ ভার্সনে রয়েছে। কোপাইলট হোমপেইজে গিয়ে সাইনআপ করলে এই ভার্সন ব্যবহার করার সুযোগ দিবে। এটি এখন Visual Studio Code, JetBrains এর InteliJ IDEA & PyCharm এবং Neovim এ ব্যবহার করা যাবে। এছাড়া এটি অনেক গুলো প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ সাপোর্ট করে। তবে সবচেয়ে ভালো কাজ করে Python, Java, JavaScript, Go, C, C++, C#, TypeScript, Ruby এসব ল্যাঙ্গুয়েজে।

আমরা Visual Studio Code এ গিটহাব কোপাইলট ইন্সটল করে দেখব এবং প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ হিসেবে Python প্রোগ্রামিং ব্যবহার করব। আপনি চাইলে JetBrains অথবা Neovim এর আইডিই ব্যবহার করতে পারেন। অন্য প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজও ব্যবহার করতে পারেন।

ভিজুয়াল স্টুডিও কোড ইন্সটল না থাকলে তা ইন্সটল করে নিতে পারেন। এরপর GitHub Copilot extension পেইজ থেকে কোপাইলট ইন্সটল করে নিতে হবে। ইন্সটলের পর ভিজুয়াল স্টুডিও কোডে ফিরে আসলে কোপাইলট ব্যবহার করা শুরু করতে পারব। আর এ জন্য আপনাকে গিটহাব কোপাইলট হোয়াইট লিস্টে থাকতে হবে। যদি হোয়াইট লিস্টে না থেকে থাকেন, তাহলে copilot.github.com ভিজিট করে সাইনআপ করে নিতে হবে। এরপর তারা মেইলে জানাবে আপনাকে এক্সেস দেওয়া হয়েছে কিনা।

ভিজুয়াল স্টুডিওতে আমরা একটা পাইথন ফাইল তৈরি করে নিব। যেমন main.py। তারপর একটা মেথড লেখা শুরু করলাম def generate_prime এতটুকু লিখলেই কোপাইলট আমাদের পুরো ফাংশন এর কোড সাজেস্ট করবে। কিবোর্ডের Tab এ প্রেস করলে ঐ কোডটা কমপ্লিট করে দিবে।

গিটহাব কোপাইলট সাজেশন

এখন যে কোডটা সাজেস্ট করল, তা পছন্দ না হলে আমরা নতুন সাজেশন দেখতে পারি। তার জন্য ম্যাকে Option (⌥) +] অথবা Option (⌥) + [ প্রেস করলে নতুন সাজেশন দিবে। উইন্ডোজে নতুন সাজেশনের জন্য প্রেস করতে হবে Alt + ] অথবা Alt+[ ।

এমনকি আমি যখন উপরের কোড লেখার পর print লেখা শুরু করেছি, তখন প্রিন্টে আমি কি লিখব, তার সাজেশনও দিয়েছে।

এখন যে সাজেশন গুলো দেওয়া হচ্ছে, সেগুলো আমাদের পছন্দ না হলে আমরা আরো বেশি সাজেশন নিতে পারি। তার জন্য Ctrl+Enter প্রেস করলে কোপাইলট নতুন একটা ট্যাবে আরো অনেক গুলো সাজেশন দিবে। সেখান থেকে আমরা Accept Solution এ ক্লিক করে যে কোন একটা সল্যুশন নিতে পারব।

কমেন্ট থেকে কোডও জেনারেট করতে পারব চাইলে। কোন একটা কমেন্ট লিখে এরপর কোড লেখা শুরু করলে পুরো কোড গুলো সাজেশট করবে। যদি সাজেস্ট না করে থাকে, তাহলে Alt + \ অথবা Option (⌥) + \ প্রেস করলে সাজেশন দেখাবে।

কোপাইলট ব্যবহার করার জন্য দরকারি কীবোর্ড শর্টকাট গুলোঃ

  • কোড সাজেশন এক্সেপ্ট করতে — Tab
  • কোড সাজেশন গুলো বাদ দিতে— Esc
  • পরবর্তী সাজেশন দেখাতে — Alt + ] ম্যাকে Option (⌥) + ]
  • পূর্ববর্তী সাজেশন দেখাতে — Alt + [ ম্যাকে Option (⌥) + [
  • সাজেশন দেখানর জন্য — Alt + \ ম্যাকে Option (⌥) + \
  • আলাদা ট্যাবে সাজেশন দেখানোর জন্য — Ctrl + Enter

গিট নিয়ে এখানে আরেকটা লেখা রয়েছে। চাইলে দেখতে পারেনঃ গিট সম্পর্কে ধারণা, গিট ইন্সটল, ব্যবহার এবং গিটহাব এ একটা প্রজেক্ট পুশ করা 

Leave a Reply