ডিজিটাল দারিদ্রতা

পৃথিবীর সকল দামী সম্পদ কারো সামনে দেওয়ার পর যদি বলা হয়, যত ইচ্ছে এখান থেকে নিতে পারেন। ফ্রি। কিন্তু সে নিল না। সে আগে যেখানে ছিল, সেখানেই পড়ে রইলো। ঐ সম্পদ ব্যবহার করে নিজের কোন উন্নতি করার চেষ্টা করল না। তাহলে আপনি তাকে বলবেন না মহা বোকা?

আমরা প্রায় অনেকেই এরকম ঐ মানুষটার মত, মহা বোকা। তথ্য থেকে দামী সম্পদ আর কি হতে পারে? জ্ঞান থেকে দামী সম্পদ আর কি হতে পারে? জ্ঞান অর্জনের জন্য আমাদের সামনে পর্যাপ্ত পরিমান রিসোর্স থেকেও আমরা কাজে লাগাই না। যা জানতে চাই, কত সহজেই জানতে পারি। একটু সার্চ করলেই সব তথ্য হাজির। তারপরও কাজে লাগাই না। এটাকে কি ডিজিটাল দারিদ্রতা বলা যায় না?

আমরা কত সুন্দর একটা সময় বাস করছি। প্রয়োজনীয় সব তথ্যই বলা যায় ফ্রিতে পাচ্ছি। যে কোন সময় যে কোন কিছু জানতে পারছি। বেশি না ৫০ বছর আগের সাথে তুলনা করলেই হবে। ৫০ বছর আগের কাউকে যদি বর্তমানে নিয়ে আসা যায়, সে এত সব উন্নতি দেখে নির্ঘাত হার্টফেল করে মারা যাবে।

যদিও আমরা আমাদের বাচ্চাদের স্কুল শেষে কোচিং, কোচিং শেষে হাউজ টিউটর ইত্যাদি রেখে পড়াই। অথচ অনলাইনে কি সুন্দর সব টিউটোরিয়াল রয়েছে, গণিত, বিজ্ঞান, আর্ট, ইংরেজী সব বিষয়ের উপর। ভাবছেন সব ইংরেজীতে? না, বাংলাতেও প্রচুর আছে। একাডেমিক পড়ালেখার সহায়ক হিসেবে খান একাডেমী অনেক প্রসিদ্ধ। তাদের অনেক গুলো ভিডিওর বাংলা ডাবিং পাওয়া যায় অনলাইনে।

আমরা হয়তো আইটি রিলেটেড টপিক্স গুলোকেই বেশি হাইলাইট করি। আসলে নন আইটি অনেক কোর্সও রয়েছে অনলাইনে। আপনি যা জানতে চান, সব। একটাই সমস্যা, আমরা জানতে চাই না। এটাই ডিজিটাল দারিদ্রতা। না জানতে চাওয়া থেকে বড় দরিদ্র আর কি হতে পারে?

এমনকি যারা পড়ালেখার পাঠ চুকিয়ে জব করছেন, তাদের জন্যও রয়েছে প্রচুর প্রফেশনাল কোর্স। লিঙ্কডইনে কি সুন্দর সব কোর্স রয়েছে নিজেকে আরো স্কিল্ড করে তোলার জন্য।

জানার সোর্সের কথা বললাম। কিন্তু জেনে না মানলে ঐ জ্ঞান আসলে কোন কাজে আসবে না। যতটুকু জানেন, যত কম জানেন, ততটুকু বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করতে পারলেই একটু একটু করে নিজের পরিবর্তন নিজের কাছেই চোখে পড়বে। একবছর লাগবে না পরিবর্তন চোখে পড়তে, এক মাসই যথেষ্ঠ। দরকার কি জানেন? আগ্রহ। জানার আগ্রহ। মানার আগ্রহ। নিজেকে পরিবর্তনের আগ্রহ। এই পৃথিবীতে সব কিছুই যথেষ্ট পরিমানে রয়েছে। যদি নিজের কিছু ঘাটতি থাকে, তার জন্য অনেকাংশে আমরা নিজেই দ্বায়ী। আপনার যদি পর্যাপ্ত আগ্রহ থেকে, যে কোন কিছুই আপনি নিজের করে নিতে পারেন। নিজের পছন্দের কিছুকে আপন করে নেওয়ার মত আগ্রহ আছে কি?

5 thoughts on “ডিজিটাল দারিদ্রতা

  1. আছে ভাই আছে ফুল আছে।কিন্তু একটা থেকে আরেকটায় লাফিং সমস্যা আর মনোযোগ ধরে না রাখতে পারা!

Leave a Reply