জ্ঞান

আমাদের সবার জ্ঞান বা জানাশোনা সমান না। আপনি যা দেখেছেন, তা আমি দেখিনি বা আমি যা দেখেছি আপনি তা দেখেন নি। তাই আমি যা দেখেছি, তা দিয়ে আপনাকে বিচার করা আমার মূর্খতা। আপনি যা দেখেছেন তা দিয়ে আমাকে বিচার করা আপনার মূর্খতা।

আপনি কোন বিষয় ভালো জানেন, এটা আপনার ক্রেডিট। যারা ঐ বিষয় কম জানে বা জানে না, এর মানে হয়তো সে অন্য কোন বিষয় আপনার থেকে ভালো জানে। আর না হয়তো অন্য কোন কিছুতে তার সময় গুলো ব্যয় করতে হচ্ছে, যা আপনি চিন্তা করতে পারছেন না। প্রতিটা মানুষের পাসপেক্টিভ আলাদা। নিজের রেফারেন্স দিয়ে অন্যকে বিচার করা নিজের মূর্খতা। তা করলে আপনি যত ভালোই জানেন না কেনো, বোকাই রয়ে যাবেন। সবচেয়ে ব্যাসিক জ্ঞানটুকু আপনার নেই। সব মানুষের জানার ক্ষমতা আলাদা। কেউ একটু কম চেষ্টা করেই অনেক কিছু শিখে ফেলতে পারে। আবার কারো একটু বেশি সময় লাগে। মানুষ চেষ্টা করলে অনেক কিছুই করতে পারে।

জ্ঞানের শেষ বলতে কিছু নেই। কোন একটা বিষয় আমি শুরু করে ঐটার বেশি দূর নাও যেতে পারি। এরপর হয়তো অন্য কিছু নিয়ে জানার চেষ্টা করতে পারি। কোন বিষয় আমার জ্ঞান নেই এর মানে হয়তো আমি ঐ বিষয়ে পর্যাপ্ত পরিমাণ সময় দিতে পারি নি। আমি নিজে বিশ্বাস করি, যে দিন আমার নতুন কোন বিষয় জানার ইচ্ছে লোফ পাবে, সে দিন আমার স্বত্তার মৃত্যু হবে 🙂

2 thoughts on “জ্ঞান

Leave a Reply