জানা এবং মানা

আমরা কত কিছু জেনেও মানি না। যেমন আমরা জানি অসাধারণ কিছু একদিনে হয়ে উঠে না। প্রতিদিন নিজের সেরাটুকু করতে করতেই অসাধারণ কিছু হয়ে উঠে।

আমরা কি চাইলেই একদিনে মস্ত বড় প্রোগ্রামার হয়ে উঠতে পারি? পারি না। প্রতিদিন একটু একটু করে প্র্যাকটিস করেই আমরা প্রোগ্রামার হয়ে উঠি। একজন ভালো প্রোগ্রামার আর একজন এভারেজ প্রোগ্রামারের পার্থক্য খুব একটা বেশি না। দুইজনেরই একই সাইজের একটা মস্তিষ্ক রয়েছে। কিন্তু চিন্তা করে ভিন্ন ভাবে, যা জানে, তা মানে। আর আমরা জেনেও মানি না। এর থেকে বেশি কিছু না।

একটা বই কেউ একদিনে লিখে ফেলতে পারে না। প্রতিদিন একটু একটু করে লিখে গেলেই এক সময় ঐটা সুন্দর একটা বই হয়ে উঠে। এখন কেউ যদি বলত, আমি অসাধারণ একটা বই লিখে ফেলব, তাহলে কি বই লেখা হয়ে যেতো? যেতো না।

আমাদের অনেকেই একাডেমিক পড়ালেখাকেই শেষ হিসেবে ধরে নেই। এরপর? নিজের গ্রোথ থেমে যায়। এক জায়গায় আটকে থাকি। অথচ শিখতে হয় নিয়মিত। জীবনের শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত। নিজেকে জিজ্ঞেস করুন, শেষ কবে নতুন কোন বিষয় জানার জন্য চেষ্টা করেছেন। কোন বিষয়ে কিউরিয়াস হয়ে গুগলে সার্চ দিয়েছেন?

আর যারা আমরা পড়ালেখা করি, তারা মনে করি শুধু একাডেমিক পড়ালেখা পড়লে আর CGPA ভালো করলেই হয়তো ক্যারিয়ারে ভালো করা যাবে। ভুল ধারণা নিয়ে বড় হচ্ছেন। শুধু CGPA দিয়ে আসলে জব পাওয়া কঠিন হয়ে যাচ্ছে। বিশ্বাস হচ্ছে না? আমাদের দেশের শিক্ষিত বেকারের সংখ্যার দিকে তাকান। সবাই চায় স্কিল। CGPA একটা ফিল্টারের মত কাজ করে, এর থেকে বেশি কিছু না। একাডেমিক পড়ালেখার পাশাপাশিও অনেক কিছু শেখার আছে।

সব কিছুকে না বললেও নতুন কিছু কে কখনো না বলতে নেই। নিজের জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত। কখন কোনটা কাজে লেগে যাবে, টেরও পাবেন না। যেদিন নতুন কিছু শেখাকে না বলে দিবেন, যে দিন নিজের উন্নতিও বন্ধ হয়ে যাবে। আপনি কি চাইবেন আপনি উন্নতি বন্ধ হয়ে যাক?

One thought on “জানা এবং মানা

Leave a Reply