চাকরি, সুযোগ এবং অন্যান্য

চাকরি চাকরিই। বিস্তারিত ব্যবচ্ছেদ মনে হয় না করতে হবে। তা হোক গুগলে অথবা নাসায় অথবা ছোট কোন স্টার্টআপে।

বড় কম্পানিতে চাকরি করলে কি হবে? হয়তো অনেক কিছু শিখতে পারব। এরপর? অন্য আরেকটা বড় কোম্পানিতে বড় পদে জব পাওয়া যাবে। একটা চাকরি ছেড়ে আরেকটা চাকরিতে ঢুকা। হয়তো কেউ নিজের কোন আইডিয়ার পেছনে সময় দিবে, কোন উদ্যেগ নিবে দারুণ কিছু করার জন্য। এই তো। যদিও ঐ সংখ্যাটা খুবি নগন্য।

আমরা যারা কম্পিউটার সাইন্সে পড়ি, প্রোগ্রামিং করি, তাদের ইচ্ছে গুগল, ফেসবুক, মাইক্রোসট বা অ্যাপলের মত কোন কোম্পানিতে জয়েন করার। কেউ কেউ ইন্টারভিউ দেই। কেউ হয়তো ইন্টারভিউ দেওয়ারও সুযোগ পাই না। আর কেউ কেউ ইন্টারভিউ পর্যন্তই। অফার না পেয়ে হয়তো মন খারাপ করি।

টাকার কথা চিন্তা করলে এসব বড় কোম্পানি গুলো থেকে অনেক ছোট কোম্পানিতে সেলারি বেশি পাওয়া যায়। শেখার কথা চিন্তা করলে স্টার্টআপ গুলোতে শেখার বেশি সুযোগ পাওয়া যায়। আর যদি ভ্যালু এড করার কথা চিন্তা করি, তাহলে বড় এ কোম্পানি গুলো থেকে ছোট খাটো কোম্পানি বা স্টার্টআপে ভ্যালু এড বেশি করা যায়। বড় কোম্পানি গুলোতে অনেক কিছু মেন্টেইন করার কারণে আপনি যে কোড লিখলেন, তা হয়তো কখনো আলোর মুখ দেখবে না। আলফা, বেটাতেই থেকে যাবে। প্রোডাকশনে যাবে না। এক্ষেত্রে যে সব স্টার্টআপ ভালো কোন আইডিয়া নিয়ে কাজ করছে, সেগুলোতে ভ্যালু এড করার দারুণ সুযোগ পাওয়া যায়। এক সময়কার ছোট খাটো কোম্পানি গুলোই তো এখনকার বড় কোম্পানি।

যদি কোন কারণে আপনার পছন্দের কোম্পানিতে ঢুকতে না পারেন, মন খারাপ করার কিচ্ছু নেই। সামনে আরো সুযোগ পাওয়া যাবে। নিজের স্কিলের পেছনে নিয়মিত সময় দিলে সামনে আরো ভালো সুযোগ পাওয়া যাবে। 🙂

One thought on “চাকরি, সুযোগ এবং অন্যান্য

Leave a Reply