গল্পঃ অসমতা

প্রিয় হৃদি,
জানো, একপক্ষীয় ভালোবাসা না সত্যিকারের ভালোবাসা। কোন দেনা পাওনার হিসেব থাকে না। দূর থেকেই কত সুন্দর গল্প সাজানো যায়।

গত কয়েক দিন তোমাকে বারান্দায় দেখি না। তোমাকে বারান্দায় না দেখলে কেমন যেন একটা টান অনুভব করি। এটাই সম্ভবত ভালোবাসা। সময়ের সাথে সাথে এই টানটা বাড়তে থাকে।

আমি শুনেছি তোমার নাকি বিয়ে ঠিক হয়েছে ঐ ব্যবসায়ী এর সাথে। আমি তো এখনো পড়ালেখা করছি। আমি যদি চাকরি বা ব্যবসা করতাম, তোমাকে ঐ লোকের সাথে একটুও বিয়ে হতে দিতাম না। তুমি কিভাবে একটা বিশাল ভুঁড়িওয়ালা লোককে বিয়ে করতে পারো? তার উপর লোকটা কথা বলার সময় মুখ দিয়ে কেমন থুতু বের হয়। লোকটি যখন তোমার সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলবে, তখন তোমার সুন্দর গায়ে থুতু এসে পড়বে। কেমন বিশ্রী। চিন্তা করতেই আমার খারাপ লাগছে।

আচ্ছা তুমি কি অপেক্ষা করতে পারবে না আমার পড়ালেখা শেষ হওয়া পর্যন্ত? আমি জানি না এই চিঠিটাও তোমাকে দেওয়া হবে কিনা। এখন তো আর কেউ চিঠি লেখে না। সবাই তো ফেসবুকে মেসেজ পাঠায়। আমি অন্যদের থেকে একটু আলাদা হতে চাই বুঝতে পেরেছ হৃদি?
অনেক ভালো থাকো তুমি।
– xyz

One thought to “গল্পঃ অসমতা”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *