অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ বা মোবাইল অ্যাপ মানিটাইজেশন বা টাকা আয় করার উপায়

প্লে স্টোরে অ্যাপ আপলোড করলেই টাকা জমা হতে শুরু হবে! না, এমন না। প্লে স্টোরে আপনি বাংলাদেশ থেকে শুধু মাত্র ফ্রি অ্যাপ আপলোড করতে পারবে। আর ফ্রি অ্যাপ থেকে কোন রেভিনিউ আসবে না। ফ্রি অ্যাপ বিভিন্ন ভাবে মানিটাইজ করা যায়। যেমন অ্যাড দিয়ে। আপনি অ্যাপে অ্যাড দিলে আপনার যে খান থেকে অ্যাড দিবেন, যেমন AdMob, InMobi, MobFox সহ আরো অনেক।  ঐ একাউণ্টে আপনার রেভিনিউ জমা হবে। গুগলের ডেভেলপার একাউণ্টে না।

যে কার্ড দিয়ে আপনি একাউন্ট খুলবেন, ঐ একাউণ্টেও টাকা জমা হবে না। যদি অ্যাড দিয়ে থাকেন, ঐ একাউন্ট থেকে পরে টাকাটা ব্যাংকে বা অন্য যে কোন মাধ্যমে আনতে পারবেন।

 

কমন প্রশ্নঃ

বাংলাদেশ থেকে কি পেইড অ্যাপ সাবমিট করা যায়?

সংক্ষিপ্ত উত্তর না।

কিন্তু আপনি চাইলে বুদ্ধি খাটিয়ে সাবমিট করতে পারেন। তবে তার জন্য বিদেশে যে সব দেশ সাপোর্ট করে, সে সব দেশ থেকে আপনার ফ্রেন্ড বা ফ্যামিলির কারো হেল্প নিতে হবে। তাদের দিয়ে একাউন্ট খুলিয়ে নিয়ে তারপর আপনি বাংলাদেশ না, যে কোন দেশ থেকেই পেইড অ্যাপ সাবমিট করতে পারবেন।

বাংলাদেশ থেকে পেইড অ্যাপ সাবমিট করা যায় না, কারণ বাংলাদেশ থেকে গুগল মারচেন্ট একাউন্ট খোলা যায় না। মারচেন্ট একাউন্ট ছাড়া আপনার অ্যাপ বিক্রি করার পর টাকা জমার কোন ব্যবস্থা নেই।  তাই।

 

এন্ড্রয়েড অ্যাপ এডমব ইন্ট্রিগ্রেট করে টাকা আয় করার জন্য নিচের টিউটোরিয়ালটি দেখা যেতে পারে।

3 thoughts to “অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ বা মোবাইল অ্যাপ মানিটাইজেশন বা টাকা আয় করার উপায়”

  1. মানিটাইজিং নিয়ে একটা বিস্তারিত লেখা দিলে ভালো হতো ভাইয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *