বাংলায় পাইথন প্রোগ্রামিং

সহজ কিন্তু সম্পুর্ণ একটা প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ হচ্ছে পাইথন। প্রোগ্রামিং শুরু করতে চাইলে এর থেকে সহজ আর কোন ল্যাঙ্গুয়েজ হতে পারে না। আবার Large Scale প্রজেক্টে এর জন্যও পাইথন সেরা একটা ল্যাঙ্গুয়েজ। পাইথন দিয়ে একই সাথে ডেস্কটপ অ্যাপ, মোবাইল অ্যাপ, ওয়েব সাইট/অ্যাপ এবং গেম ডেভেলপমেন্ট করা যায়। মেশিন লার্নিং, ডাটা সাইন্টিস্টদের পছন্দের লিস্টে রয়েছে এই পাইথন ল্যাঙ্গুয়েজ। সহজ ভাষায়ঃ One Language for Everything! ম্যাকগাইবার দেখছি না আমরা? ম্যাকগাইবার নাইফের মত।

গুগল, ইউটিউবের, Disney, Mozilla সব বড় বড় প্রজেক্টে পাইথন ব্যবহার করে। এখনকার প্রায় প্রজেক্টেই মেশিন লার্নিং এর দরকার হয়, যেমন অ্যামাজন, ফেসবুক, গুগল সহ যত টপ সাইট রয়েছে, সব গুলো সাইটই অনেক ডেটা নিয়ে কাজ করে। ভবিষ্যৎ এ আরো বেশি ডেটা নিয়ে কাজ করতে হবে। ডেটা নিয়ে কাজ করার জন্য, ডেটার উপর লজিক বসিয়ে নতুন ডেটা পাওয়ার জন্য পাইথন দারুণ একটা ল্যাঙ্গুয়েজ।

প্রোগ্রামিং, সফটওয়ার ডেভেলপমেন্ট এর সময় আমাদের অনেকের সাথে কাজ করতে হয়। টিমের অন্যান্য মেম্বারদের কোড দেখতে হয়, কোড পড়তে হয়। পড়ে তা বুঝতে হয়। আর পাইথন কোড গুলো সহজেই পড়া যায়। তা ছাড়া প্রোগ্রামাররা অনেক গুলো কোড লিখে সবার ব্যবহার করার জন্য শেয়ার করে। যাকে আমরা লাইব্রেরী বলি।একই কাজের জন্য আমরা নিজে নিজে আবার শুরু থেকে কোড না লিখে ঐ আগে লেখা লাইব্রেরী গুলো ব্যবহার করতে পারি। আর তখনো কোড পড়তে হয়, পাইথন অরগানাইজড হওয়াতে কোড গুলো সহজেই পড়ে বুঝা যায়।

এখানে আমরা পাইথন সম্পর্কে জানবো। জানব প্রোগ্রামিং সম্পর্কে। তারপর পাইথন দিয়ে কিভাবে সফটওয়ার তৈরি করা যায়, তা শিখব। এরপর নিজ নিজ ক্রিয়েটিভিটি প্রয়োগ করে বড় সড় সফটওয়ার, গেম বা মোবাইল অ্যাপ তৈরি করে ফেলব।

 

লেখা গুলো আপডেট করা হচ্ছে। শেষ কয়েকটা চ্যাপ্টার লেখা বাকি রয়েছে এখনো। খুব দ্রুত শেষ হবে ইনশাহআল্লাহ। 🙂