জানতে থাকি, যত পারি

যে মানুষ যত কম জানে, তার জানার সুযোগ তত বেশি। যে জানে, সে তো জানেই। আর সে জানে মনে করেই নতুন কিছু জানা থেকে নিজেকে সরিয়ে রাখে।

কম্পিউটারের একটা বিশেষ গুণ হচ্ছে এটা প্রোগ্রাম করা যায়। নতুন নতুন প্রোগ্রাম যুক্ত করা যায়। মানুষের ক্ষেত্রেও একই রকম কাজ করে। নতুন কিছু জানা মানে নতুন একটা প্রোগ্রাম ইন্সটল করা। যে যত ভিন্ন কিছু জানবে, সে তত ভিন্ন কিছু তৈরি করতে পারবে। ভিন্ন ভিন্ন অনেক কিছু জানালে একটা দারুণ সুবিধে পাওয়া যায়। একই সম্যসা ভিন্ন ভিন্ন ভাবে চিন্তা করা যায়। একই সমস্যা ভিন্ন ভিন্ন ভাবে সমাধান করা যায়।

আমরা মানুষেরা একটা বিশেষ ক্ষমতা নিয়ে জন্মগ্রহণ করেছি। তা হচ্ছে যে কোন কিছু জানতে পারা। আপনার রকেট তৈরি করার ইচ্ছে হলে আজ যদি জানা শুরু করলে পাঁচ বছর পর ঠিকই জেনে পেলতে পারবেন কিভাবে রকেট তৈরি করতে হয়। বেশি চেষ্টা করলে রকেট তৈরিও করে ফেলতে পারবেন। আর আমরা কঠিন কিছুকে রকেট সাইন্স এর সাথে তুলনা করি।

একজন ভালো লেখক কিভাবে হওয়া যায়, তা শেখা যায়। একজন ভালো আর্টিস্ট কিভাবে হওয়া যায়, তা শেখা যায়, শেখা যায় কিভাবে ভালো কবিতা লিখতে হয়, শেখা যায় কিভাবে একজন ভালো নেতা হতে হয়, শেখা যায় কিভাবে একজন সফল ব্যবসায়ী হওয়া যায়, একজন বিলিয়ন ডলার ইনভেস্টর হওয়া যায়, একটা মানুষকে দেখে কিভাবেই তার সম্পর্কে বলে দেওয়া যায় তাও শেখা যায়, কিভাবে একটা মেয়েকে/ছেলেকে ভালবাসতে হয় তাও শেখা যায়। শেখা যায় না, এমন কোন কিছু হয়তো নেই।

স্টিভ জবস একটা কথা প্রচার করে গিয়েছেঃ Stay Hungry, Stay Foolish

যা কিছুই জানতে ইচ্ছে করে, তাই জানা সম্ভব। শুধু কোন কিছু নিয়ে জানার আগ্রহ তৈরি হলেই হলো। যত বেশি কিছু জানতে পারবেন, ততই ভালো। কারণ পৃথিবীটা যারা জানে, তাদের জন্য।


One thought on “জানতে থাকি, যত পারি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *