পূরণ হওয়া স্বপ্ন গুলো – ফ্রিল্যান্স আউটসোর্সিং

টাকা নিয়ে আমার কোন মাথা ব্যথা কোনদিন ও ছিল না। খেয়ে দেয়ে পড়ালেখা করতে পারলেই হয়। ইচ্ছে হচ্ছে ডক্টরেট করা। তাই পড়ালেখার দিকেই নজর দিয়ে আসছি। মাঝে মাঝে ব্লগিং। নতুন কিছু জানার জন্য নেট সার্ফিং নেশা হয়ে উঠলো। এ সাইট থেকে ঐ সাইট করতে করতেই সারাদিন কাটিয়ে দি। আগে কম্পিউটার ছাড়া কিছু ভালো লাগত না। আর এখন সাথে ইন্টারনেট। মাঝে মাঝে নেট কানেকশন দশ মিনিটের জন্য ডিসকানেক্টেড হলে মনে হয় যেন আমি অনেক কিছু হারিয়ে ফেলছি। নেট প্রোভাইডারকে সাথে সাথেই ফোন। আর আবার কানেকশন পেলেই স্বস্তি। বন্ধু বা আত্মীয় দের মাঝে একটু বিরক্তির কারণ হয়ে আছি এজন্য। ঈদে সবাই বাড়ি যায়, আমি যাই না। কারন আমার কম্পিউটার আর ইন্টারনেট।

টিউশনি করা মনে হয় আমার কপালে নেই। বন্ধুরা আমার জন্য টিউশনি যোগাড় করলেও কয়েক দিন গিয়ে আমি আর পড়াতে যাই না। আমার ভালো লাগে না। এটা বলার কারন হচ্ছে যে আমি টিউশনি কে অবহেলা করি তা না। আমার টিউশনি করার মত ক্ষমতা বা টিউশনি করতে যে গুন গুলো ধকরার তা নেই। তাই তো টিউশনি করা হয় না। আর এটাই হচ্ছে একটা সমস্যা। পড়ি প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিতে। খরচ তুলনা মূলক ভাবে অনেক বেশি। আর তাই ফ্যামিলি বা বন্ধুদের থেকে একটা কথা শুনতে হয় যে টিউশনি করলে তো অন্তত তোর নিজের খরচ হয়ে যায়। টিউশনি করস না কেন? টিউশিনি করে অনেকেই নিজের খরচ চালায়। আর পরিচিত এমন দুই একজকে দেখিয়ে বকা ঝকার পরিমান বাড়িয়ে দেয়… বকা শুনে চিন্তা করলাম সত্যি আমার এবার কিছু করা উচিত। অন্তত নিজের খরচ টা যোগাড় করা উচিত।

আমি অনলাইনে আজ প্রায় দুই বছর। টাকা রুজির চেষ্টা করা হয় নি জোর দিয়ে। ব্লগিং করতাম বাংলায়। ইংরেজী ব্লগিং করলে ও হয়তো একটা গতি হত। কিন্তু দূর্ভাগ্যক্রমে হয় নি। টাকা রুজি করার জন্য সিরিয়াস হয়ে গেলাম। আর তা অক্টেবর ২০১১, ওডেস্ক আর ফ্রীল্যান্সার এ বিড করলাম। একাউন্ট আগেই খোলা ছিল। তাওহিদ ভাই এর সাহায্য কি কি করতে হবে জেনে নিলাম। আর ফ্রীল্যান্সিং সাইট গুলো ছাড়াও পরিচিত যারা ওয়েব ডেভলপিং এর কাজ করে তাদের কাজে জিজ্ঞেস করলাম আমার জন্য কোন কাজ আছে কিনা। নাহ!! কেউ সাড়া দেয় নি। দুই এক জনের কাছে কাজ পাবো বলে আমার খুব বেশি বিশ্বাস ছিল। তাদের নক করলাম। কিন্তু হতাস করল।।

ওডেস্কে দুই একটা ছোট কাজ পেয়ে গেলাম। ও গুলো শেষ করে পেলাম কিছু টাকা। অনেক খুশি হলাম। ব্রাউজিং আর পড়ালেখার মাঝে মাঝেই চলতে থাকল। পরীক্ষা শেষ। মোটামুটি অনেক গুলো সময় হাতে। আর ওডেস্কে বিড করতে লাগলাম আরো মন দিয়ে। নিশাচর হওয়াতে এক সকালে বিড করে ফজরের নামাজ পড়ে ঘুমুতে গেলাম। আর দুপুরে ঘুম থেকে উঠেই প্রতিদিনের মত অনলাইনে আসলাম। দেখলাম ওডেস্কে নতুন দুটি মেসেজ দুটি বিড থেকে। আল্লাহর রহমতে দুটি জব ই পেলাম। একটা আওয়ারলি আরেকটা ফিক্সড। আওয়ারলি জবটা অনেক বড় একটা প্রজেক্টের। জয়েন করলাম। আর সত্যি আমার স্বপ্ন গুলো পূরণ করে দিল। আর আমাকে নতুন করে স্বপ্ন দেখতে সাহায্য করল… আমাকে আল্লাহ বেশি দিন কষ্ট দেয় নি। মাত্র এক মাসের মধ্যেই সব কিছু পেতে সাহায্য করেছে। মাত্র এক মাস ফ্রীল্যান্সিং সাইট গুলোতে ট্রাই করেই আমি এখন বলতে পারি যে কোন সরকারী চাকুরে জীবি থেকে ভালো আছি… আল্লাহ যেন আমাকে এমন ভালো রাখেন… আর আমার ভাই, বাবা, মা ও অনেক খুশি। ছেলে রুজি করে… হয়তো তাদের খুশি আমার থেকেও বেশি।

গল্পটা বোরিং হোক আর যাই হোক লেখার অনেক গুলো কার।ণ রয়েছে। আমি চরম হতাশ ছিলাম। ওডেস্কে কাজ করে আমার হতাশটা কেটে আমি এখন পুরো স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে পারছি মাত্র এক মাসে। হতাশতার সময় আমার কাছের কয়েকটি মানুষ পাশে ছিল যারা আমার হতাশতা দেখছে। রুবেল, নাসির ভাই, তাওহিদ ভাই, মনজু, লাকিএফএম, মেহেদী… হয়তো তারাও চিন্তা করেনি আমি এত সুন্দর একটা জব পাবো। এমন কি আমিও। আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করে শেষ হবে না।

যারা এরকম কম্পিউটার নিয়ে পড়ে থাকে। তাদের হয়তো বাসা থেকে আমার মতই বকা শুনতে হয়। আর ইন্টারনেট থেকে যদি কিছু রুজি করে ফ্যামিলিকে দেখানো যায় তাহলে তারাও খুশি আমরা ও… কাজ করার জন্য যে এমন কিছু শিখতে হবে তা না। যা জানা আছে তা নিয়েই আমার মনে হয় শুরু করা যায়। কারন অনেক গুলো কাজ আছে অনলাইনে যা সবাই করতে পারে।। অনেকেই পিটিসি সাইট গুলো নিয়ে পড়ে থাকে। তাদের আগেই ভালো লাগত না। এখন তো নাই…

আপনার জন্য আমার আরেকটি লেখা 🙂


60 thoughts on “পূরণ হওয়া স্বপ্ন গুলো – ফ্রিল্যান্স আউটসোর্সিং

    1. ধন্যবাদ তাওহিদ ভাই। সব সময় পাশে থাকার জন্য…

  1. যাক শেষ পর্যন্ত তাহলে জবের দেখা পেলেন। ভাল লাগলো শুনে। আসলে আমাদের বাবা মা’রা একটুতেই আমাদের বকাঝকা দেয়। যেটা হয়তো অনেকেই মানতে না পেরে তার অবস্থান থেকে সরে গিয়ে অনেক সময় খারাপ পথে পা বাড়ায়। আর যারা নিজেরাই জানে যে তারা কতটা ঠিক আছে নিজের অবস্থানে তারা হয়তো বকাঝকা শুনেও কাজ চালিয়ে যায়।

    আপনার লিখাটি অনুপ্রেরনাদায়ক বটে। আমার ক্ষেত্রেও এমনটা ঘটেছিলো। তাওহীদও এই সমস্যাতেও পড়ছিলো। আসলে অনলাইনে যারা কাজ করে তাদের ক্যারিয়ারটাই এভাবেই শুরু হয় বেশির ভাগের। কিন্তু, আপনি তাড়াতাড়ি কাজ পেয়েছেন এটা আপনার গুড লাক। ছোট মুখে বড় কথা বলতে নেই তাও বলি, “সময়কে কাজে লাগাতে পারলে সবাই সফল হবে” । !!!! 🙂

    ভাল থাকবেন ভাই।

    1. আপনার কথা শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।
      আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করে আমি শেষ করতে পারব না। অনেক দ্রুত আমাকে সাহায্য করছে।
      সময়টাই আসল…

    2. vhaiya ami to akebarei kichu jani na….tobe khub agroho ache aita sotti & dhoirjo o ache…amar dara ki kichu kora possible..plz vhaiya amak reply diyen….

  2. bro, u hve gave hope to many people. i tried once. but after some failing i gave up. if i had not given up, i might have made some good position now…..

    i made some other position in somewhere. but still think things could be different.

    1. ভাগ্য অনেক বেশি কাজ করে। আর কভার লেটারটি…
      অনেক গুলো ফ্রীল্যান্সিং সাইট আছে। নতুনরা সব খানে খাপ খেয়ে নিতে পারে না। এ জন্য সব চেয়ে ভালো হচ্ছে ওডেস্ক। আমি এটা দিয়ে শুরু করছি সে জন্য না। আমি ব্লগিং করি দু বছর। (আপনি ও করেন – আমার থেকেও হয়তো ভালো জানেন) সে জন্যও হয়তো একটু জানার সুযোগ হয়েছে।
      আর আমি কয়েক দিন ফ্রীল্যান্সারে বিড করছি। আমার মনে হয় নতুনদের জন্য অনেক কঠিন।
      ওডেস্কে নিজের কোন প্রোটফোলিও না থাকলে ও কাজ পাওয়া সহজ। আর একটা দুইটা পেলে তো পরে আরো সহজেই কাজ করা যায়। কিন্তু ফ্রীল্যান্সিং এ যে মজা তা হয়তো অন্য কোন চাকরিতে নেই… ওডেস্কে দেখলাম প্রায় ফ্রীল্যান্সার এর আওয়ার রেট $30 এর উপর। কারো কারো আবার $100 এর ও বেশি। যা বাংলাদেশে থেকে কেউ কল্পনা করতে পারবে না। ( আপনি আমার বড়, আপনাকে আমি কিছু বলতে পারব না 🙁 )

  3. ভাই অনুপ্রাণিত হলাম-সু্ন্দর লিখেছেন ।
    আামি ওয়েব সাইট তৈরীর এডভান্স লেভেল র্পযন্ত ভালই পারি কিন্তু বিট ধৈর্য নিয়ে তেমন করিনি ।
    ২ টা ‍সি ম এস ও পারি ।

  4. আসলেই, আমরা যারা সারাদিন নেট নিয়েই পড়ে থাকি, সবকিছুর পাশাপাশি খানিকটা রুজির চিন্তা করলে মন্দ হয়না… আপনার পোস্টটা অনেকের জন্যেই শিক্ষণীয়… শুভকামনা রইলো আগামী দিনগুলোর জন্যে জাকির ভাই…

  5. সফলতার গল্প শুনতে খুব ভালো লাগে। মাঝে মাঝে প্রায়ই স্বপ্ন দেখি, তরুণদের জন্য এমন একটি পত্রিকা বের করবো যেখানে শুধু সফলতার গল্প থাকবে, কিভাবে সফল হতে হয় সেটি সফলদের কাছ থেকে শোনাবো তরুণদের। কিন্তু উদ্যোগ টা বাস্তবায়ন করতে পারি না, কারণ তরুণদের সফলতার গল্প খুবই কম।
    পরিস্থিতি এখন বেশ পরিবর্তণ হয়েছে, তরুণদের সফলতার হার এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি। অন্তত আমার প্রিয় মানুষগুলোর কথা বলতে পারি। এতদিন ইউনুস বা তাওহিদের গল্প আমি গর্বভরে আমার অফিসের কলিগ বা বন্ধুমহলে বলে বেড়িয়েছি, সফল হিসাবে এখন আরোও একজনের নাম সে তালিকায় যুক্ত করা হবে, জাকির ভাই!
    আপনার আরোও সফলতা কামনা করি, স্বপ্নগুলো পূরণ হোক, সেই স্বপ্ন দেখি।
    তরুণদের সফলতার হার যেহেতু বাড়ছে, একদিন আমার স্বপ্নও নিশ্চয় পূরণ হবে, নতুন প্রজন্মের তরুণদের শুধু সফলতার গল্পগুলো শোনাতে পারবো। 🙂

    1. 🙂 স্বপ্ন দেখি বাংলাদেশে সকল তরুন আর চাকরির জন্য অপেক্ষা না করে আউট সোর্সিং করেনিজেই নিজের খরচ চালিয়ে নিবে…
      পত্রিকা খুলুন আর যাই করুন পাশে পাবেন সব সময়। আপনার আর কোন স্বপ্ন বাকি আছে?? বলেন তো :P।
      ধন্যবাদ সাংবাদিক আল আমিন ভাই ও সহ ব্লগার 🙂

  6. আসলে আমি জাকিরের সফলতার কথা বেশ কদিন দিন আগেই একজনের মুখ থেকে শুনেছি। আমি যার মুখ থেকে শুনেছি তাকেও বলেছি আর কিছু দিন যেতে দাও জাকির অনেক ভালো করতে পারবে, কারন ওর মধ্যে একটা ব্যাপার আছে।

    জাকির দোয়া করি অনেক এগিয়ে যাও তুমি। অনেক অনেক অনেক শুভকামনা রইলো।
    এই লেখাটা নতুন দের অনেক কাজে আসবে। ও আচ্ছা তুমি করেই বললাম আজ, কিছু মনে করো না।

  7. চরম শিক্ষণীয় লেখা।

    আসলে সব কিছু ম্যাজিকের মত কাজ করে তাই প্রথমে মা বাবা বিশ্বাস করতে চায় না।

    গুড লাক

    1. হ্যা, তুই আর লাকিএফএম না বললে লেখাটা ড্রাপটে পড়ে থাকত।

  8. অভিনন্দন জাকির ভাই। বাংলাদেশী ছেলেদের এরকম সাফল্যের গল্প শুনলে সত্যিই অনেক খুশী খুশী লাগে। মনে হয়, অন্তত একটা দিকে আমরা হাটি হাটি পা পা করে বেশ উন্নতি করছি। আশা করি, অদূর ভবিষ্যতে এরকম সফল ফ্রীল্যান্সার এবং অনলাইন আর্নারে ভরে যাবে বাংলাদেশ। এরকম চলতে থাকলে হয়তো খুব শীঘ্রই আমারা বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি পাবো। তথাকথিত মামা চাচাদের ফোন আর ঘুষ দিয়ে সরকারী চাকুরীর চিন্তাভাবনাকে থুতু ছিটিয়ে স্বাধীনচেতা একটা পরিপূর্ন মানুষ হয়ে উঠতে পারবো। জাকির ভাই সহ সবাইকে আমার প্রাণঢালা অভিনন্দন।

    আর হ্যা…..অনলাইনে কিছু করার কাহিণীটা ঠিক আমার সাথে মিলে যাচ্ছে…. 🙂

    ভালো থাকবেন।

    1. আজ দেখলাম প্রায় সকল ফ্রীল্যান্সারে গল্প প্রায় একই রকম। ভালো লাগলো।
      আর আমার মতে ঘুষ দিয়ে চাকরি বা যে কোন সরকারী চাকরী থেকে ফ্রীল্যান্সিং অনেক গুন ভালো। পড়ালেখার শেষ করে চাকরির জন্যে ও বসে থাকতে হয় না। আর আমি তো এখনো ছাত্র।
      আপনাকেও অভিনন্দন শামীম ভাই। ভালো থাকবেন।

    2. খুব ভালো বলেছেন Shamim ভাই .

      ‘এরকম চলতে থাকলে হয়তো খুব শীঘ্রই আমারা বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি পাবো। তথাকথিত মামা চাচাদের ফোন আর ঘুষ দিয়ে সরকারী চাকুরীর চিন্তাভাবনাকে থুতু ছিটিয়ে স্বাধীনচেতা একটা পরিপূর্ন মানুষ হয়ে উঠতে পারবো। জাকির ভাই সহ সবাইকে আমার প্রাণঢালা অভিনন্দন।’
      সহমত

  9. আমিও সেই ২০০৫ সালে ইন্টারনেট চালান শুরু করি, তখন টেলিটক সিম দিয়ে নেট চালাতাম আর মডেম হিসাবে ছিল একটা ভাংঙ্গা-চুড়া সেমসাং মোবাইল, মোবাইলটার ব্যাটারি ডাউন ছিল সারাক্ষন চার্জে দিয়ে নেট চালাতাম ৬/৭ কে.বি স্পিড পেতাম। দুই ভাই ভাগা ভাগি করে নেট চালাতাম আর আমাদের নেট পার্টনার ছিল ভাইয়ার আরো দুই বন্ধু। পুরো মাসের ১০ দিন নেট পেতাম আমরা দুই ভাই। আর সেই ১০ দিনের কিছু সময় আমি নেটে বসার সুযোগ পেতাম। ২০০৮ গিয়ে আমরা ব্লগিং শুরু করি আর ঐ বছরই আমরা ব্লগিং এ সফলতা পাই।

    আসলে প্রতিটা সাফল্যের পেছনে রয়েছে অনেক সংগ্রাম, কঠিন বাস্তবতা আর সাথে আছে চরম ধৈর্য। আজ আমার সব আছে দুই ভাইয়ের আলাদা আলাদা পিসি, আলাদা আলাদা নেট কানেকশন আরো কত কি…..

    শুভ কামনা রইল জাকির ভাই আপনার প্রতি, এগিয়ে যান আপনার কাংক্ষিত লক্ষ্যে।

    মাঝে মাঝে আমারও শখ জাগে ফ্রীলেন্সিং করতে, আসলে ব্লগিং করেই তো সময় পাই না ফ্রীলেন্সিং এ কিভাবে সময় দেব 😉 তারপরো যদি কখনো ফ্রীলেন্সিং এ যাই তাহলে আপনাদের সবারই সাহায্য লাগবে আশা করি আমার পাশে থাকবেন সেই সময়।

    1. মাসুদ ভাই, সব সময় পাশে পাবেন। আর আপনার ব্লগিংই অনেক ভালো। তা দিয়েই আপনার স্বপ্ন গুলো পূরন করতে পেরেছেন এবং আশাকরি ভবিশ্যতেও পারবেন। দেখা হবে অন্য একদিন। যে দিন সবাই নিজ জায়গা থেকে সফল হবো… সেই দিনের প্রতীক্ষায়… শুভ কামনা সবার জন্য…

  10. প্রথমেই ধন্যবাদ আপনার কথাগুলো শেয়ার করার জন্য ।
    কিছুই বলার নাই …………………………………………
    তবে আজব কথা হইলো আপনার কথাগুলোর সাথে আমি আগেও পরিচিত 😀
    কারণ এই রকমই আমার ক্ষেএতে o ঘটেছে 😀

    1. সবাই তো একই পথের পথিক তাই হয়তো মিল। ধন্যবাদ।

  11. বাহ বড়ই চমৎকৃত হইলাম ! মনে আশাও জাগিল! আশা রাখছি, সাফল্য আপনার দরজায় কড়া নাড়িবে।

  12. / মাত্র এক মাস ফ্রীল্যান্সিং সাইট গুলোতে ট্রাই করেই আমি এখন বলতে পারি যে কোন সরকারী চাকুরে জীবি থেকে ভালো আছি… আল্লাহ যেন আমাকে এমন ভালো রাখেন… আর আমার ভাই, বাবা, মা ও অনেক খুশি। ছেলে রুজি করে হয়তো তাদের খুশি আমার থেকেও বেশি। /

  13. আপনি odesk এ কি ধরনের কাজ করেন? আমার একটা সাইট আছে যেখানে ব্লগিং করে টাকা পাই microworkers থেকে, odesk বা freelancer এ এখনো বিড করিনি, odesk এ কাজ করার ইচ্ছা আছে, আপনার facebook প্রোফাইল বা মেইল আইডি দেন, যাতে আপনার থেকে একটু সাহায্য নিতে পারি, ধন্যবাদ।

  14. konok vai valo achen amake chinchen ami tuhin chachar vatiga. apnar post ta pore khub valo laglo. apne to 1 mashe success peaygalen. but ame prai 3 mash age odesk a account khuleche but kono love hoini. baritea kobe ashben.

  15. আমি একজন কওমী মাদ্রাসায় পড়ুয়া মানুষ। বলতে পারেন সবার শ্রদ্ধেয় আলেম সমাজের একজন সদস্য। আমি প্রযুক্তিকে ভালবাসি। বলতে পারেন একজন প্রেমিক। সবাই বলে ইন্টারনেট থেকে আয় করা যায়। আমি একটু দেখতে চাই। এবং বুঝতে চাই সত্যিই কি এমন! জাকির ভাই! আপনার কথা শুনে মনে হচ্ছে সত্যিই। কিন্তু এটুকু তো সত্য যে এর জন্য আপনাকে কাজ শিখতে হয়েছে। বলবেন কি? কি কি কাজ করতে হয় এর জন্য এবং কিভাবে।

    1. পরিশেষে আপনার জীবনের উত্তরোত্তর মঙ্গল কামনা করছি।

    2. আমি ওয়েব ডেভলপিং এর কাজ করছি। আর এর জন্য আমাকে HTML, CSS, PHP এবং ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে জানতে হয়েছে।

  16. অনেক ভাল লাগল জাকির ভাইয়া। আরো সামনে এগিয়ে যান এই কামনা করি।

  17. ami apnar sobgulu blog pori even ami apnar anroid devoloping site o porechi o kaj korechi. recently ami training korechi SEO er upor. ta chara HTML,PHP,JAVA,DREAM WEAVER,CSS,DRUPAL,agulu naracara kortechi…. amar odesk a 100% profile kora ache but ami kaj shuru korar purbe apnar sathe akbar dekha korbo.
    mail+facebook: [email protected]. i hope you mail me and give me your full Address.
    sanjib…

  18. ধন্যবাদ জাহির ভাই !!!সুন্দর একটা পোস্ট এর জন্য—আমি নিজে কাজ শিখে “”কাজ করতে চাই””কিন্তু আমার পরিচিত কেও ওয়েব
    ডেভলপিং করে না””তাই কারো কাছে সাহায্য পাওয়ার আশা করতে পারিনা””কিন্তু আমার আগ্রহ আছে!!আমি আউটসোর্সিং করতে চাই!!!আমি সারা দিনে প্রচুর সময় ব্যায় করি অনলাইন এ “””!!ভাই আমাকে কি আপনি হ্যাল্প করবেন??আমার ফেসবোক এর এড্ডেস বার টা দিলাম”””আপনার সাতে আমি যোগাযোগ করতে চাই
    https://facebook.com/sahinalam.sahinalam.77

  19. একটা কাজ সুরু করি কিন্তু শেষ করতে পারি না, হাজারো সমস্যা আমার সামনে চলে আসে বাধ্য হয়েই সেটা অফ করে দিতে হয়।

    সঠিক গাইড লাইনের অভাবে কোন কিছুতে সফল হতে পারি। তাই সফল দের গল্প পরি আর শিখী তারা কীভাবে সফল হয়েছে। আমাকে সফল হতে হলে কি কি করতে হবে।

    অসংখ্য ধন্যবাদ ভাইয়া আপনার সফলতার গল্প আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *