গেম ডেভেলপার হিসেবে পথ চলা…

নিজের সম্পর্কে একটি লেখা।  আজ আইটিউন্সে নিজের ডেভেলপ করা প্রথম গেম সাবমিট করেছি। সিম্পল একটা গেম। গেম ডেভেলপমেন্টে যাদের অভিজ্ঞতা আছে, তারা দেখলে হাসাহাসি করতে পারে। অনেক দিনের আগ্রহ, তাই  এক্সাইটেড। গেম ডেভেলপমেন্টে নিজের ক্যারিয়ার শুরু বলা যায়। গেম ডেভেলপমেন্ট শুরুর আগে কি কি করে এসেছি, সে সম্পর্কে একটু বলা যাক।

ইন্টারনেটে এসে প্রথম যে কাজ টা করেছি, তা হচ্ছে লেখা লেখি। লেখা লেখির পাশা পাশি প্রথম ফ্রিল্যান্সিং হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করি। ২০১১ এর শেষের দিকে। ক্যারিয়ার শুরুর আগে যে কয়টা জিনিস শিখেছি, তা হচ্ছে: HTML, CSS, JS, WordPress, Joomla. আর একাডিমিক ভাবে তখন সি প্রোগ্রামিং জানতাম। সি প্রোগ্রামিং জানার কারণে অন্য সব শেখা অনেক সহজ মনে হতো। এলগরিদম কি, ডাটা স্ট্রাকচার কি এসব ও একটু আধটু জানতাম। প্রথম কাজ পাই ওয়ার্ডপ্রেসের উপর। আর এ জন্য এর পরবর্তিতে সব ওয়ার্ডপ্রেস রিলেটেড কাজ পেতে থাকি।

ওয়ার্ডপ্রেসে কাজ করতে গিয়ে দুইটা জিনিস শিখতে হয়েছে, একটা হচ্ছে PHP আরেকটা MySQL.  তত দিনে কন্টেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সিস্টেম কিভাবে কাজ করে, তাও জানা হল একটু আধটু। PHP & MySQL ব্যবহার করে কিভাবে CMS তৈরি করা যায়, তাও শিখেছি।  যদিও কোন দিন কাজে লাগানো হয় নি। মোবাইল ফ্রেন্ডলি রেসপন্সিব ওয়েব সাইট তৈরি করা শিখতে হলো।

ফ্রিল্যান্সিং করতে গিয়ে একটা কিছু লক্ষ করেছি, যত দিন কাজ করব, তত দিনই ভ্যালু।  এক সপ্তাহ কাজ না করলে পরের সপ্তাহ সমস্যায় পড়তে হয়।  আবার মাঝে মাঝে কোন কাজ করতে ইচ্ছে করে না। কাজ না করে কি করা যায়, তা খুঁজতে ছিলাম।   এন্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপমেন্টের সাথে পরিচিত হয়েছি তখন। এন্ড্রয়েড অ্যাপ কি, কিভাবে তৈরি করতে হয়, এসব জানতে জানতে অনেক সময় ব্যয় করেছি। এরপর আস্তে আস্তে নিজেও দুই একটা তৈরি করার চেষ্টা করেছি। ২০১৩ এর দিকে। এবং শেষে গুগল প্লেতে আপলোড দিয়েছি।

বাংলাদেশ থেকে প্লে স্টোরে অ্যাপ সেল করা যায় না। মার্চেন্ট একাউণ্ট বাংলাদেশে সাপোর্ট নেই। তাই। শুধু ফ্রি অ্যাপ আপলোড করা যায়। আর ফ্রি অ্যাপের রেভিনিউর মাধ্যম হচ্ছে এড। এডমব ব্যবহার করেছি তখন। রেভিনিউ আসবে কিনা, তা শিউর হওয়ার জন্য টেস্টিং করে এড বসিয়ে অ্যাপ আপলোড দিয়েছি। এরপর আস্তে আস্তে রেভিনিউ আসতে লাগল। আমিও নতুন অ্যাপ তৈরি করে আপলোড করতে লাগলাম… আস্তে আস্তে ফ্রিল্যান্সিং ছেড়ে দিয়েছি। গাইডলাইনের জন্য গুগলে সার্চ। এক একটা সমস্যার জন্য এত্ত গুলো রেজাল্ট। তো তার মধ্যে থেকে সঠিকটা বের করতে করতে অনেক সময় ব্যয় হতো।

এন্ড্রয়েডের পাশা পাশি আইওএস অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট ও শিখে নিয়েছি। আগে থেকেই আগ্রহ ছিল আইওএস এর জন্য কাজ করব। মাঝখান দিয়ে GRE এর জন্য প্রস্তুতি নিয়েছি। তখন ফ্রিল্যান্সিং, অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট সহ সব কিছুই করা বন্ধ করে দিয়েছি। প্রায় ৬ মাসের মত কিছুই করা হয় নি। বলতে গেলে ২০১৪ তে কিছুই করা হয় নি। ২০১৪ এর শেষের দিকে এরপর আবার আইওএস এর জন্য অ্যাপ তৈরি করা শুরু করেছি।  সাথে সাথে সুইফট প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ নিয়ে ঘাটা ঘাটি করেছি। Swift এর সাথে SpriteKit, অ্যাপলের 2D গেম ইঞ্জিন। SpriteKit আর Swift শিখতে শিখতে একটা গেম তৈরি করেছি। Run the Ball নামে। যদিও শুরুতে গেমটির নাম দিয়েছি Tap the Ball. আইটিউন্সে এ নামে আরেকটি গেম থাকায় আমি আর এ নামে আপলোড করতে পারব না, তাই নাম পরিবর্তন করে Run the Ball দিয়েছি। এখন আরো দুইটা ছোট ছোট গেম নিয়ে কাজ করছি iOS এর জন্য। পাশা পাশি এন্ড্রয়েডের গেম ডেভেলপমেন্ট নিয়ে একটু দেখতেছি। OpenGL ব্যবহার করে এন্ড্রয়েডের গেম ডেভেলপমেন্ট।

এর আগে ও গেম ডেভেলপমেন্টের চেষ্টা করেছি। এন্ড্রয়েডের জন্য। কিছুদূর করে অন্য কিছুতে আবার সময় দেওয়ার কারণে ঠিক মত কিছুই হয় নি। আবার সব কিছু কেমন কঠিন লাগতো। আগে কঠিন লাগলেও এখন মোটামুটি সহজ মনে হচ্ছে।

প্রোগ্রামার হিসেবে নিজেকে যতটুকু না পরিচয় দিতে ভাল লাগে, তার থেকে বেশি ভালো লাগে লেখক হিসেবে পরিচয় দিতে। লিখতে খুব ভালো লাগে। আবার প্রোগ্রামিং ও ভালো লাগে। সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে এক্সপ্লোর করতে। নতুন বিষয়। এ জন্য বার বার নিজের পাথ পরিবর্তন করি। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, এরপর অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, এরপর গেম ডেভেলপমেন্ট। কয়েক দিন থিম ডেভেলপমেন্ট, প্লাগইন ডেভেলপমেন্ট এর চেষ্টাও করেছি… এগুলো এক একটারও অনেক গুলো শাখা।  কোনটাতেই এক্সপার্ট না, একটু আধটু জানি। একটু আধটু জানার পর নতুন বিষয় সম্পর্কে জানতে ইচ্ছে করে। জানার চেষ্টা করি। এখনো অনেক বিষয় সম্পর্কে জানতে অনেক আগ্রহ। ভালো হত যদি পৃথিবীর সব সময় আমার থাকতো। বা পৃথিবীর সব কিছু সহজেই জানা সম্ভব হতো। ঐটা সম্ভব না। হয়তো তাই পৃথিবী অনেক সুন্দর…


16 thoughts on “গেম ডেভেলপার হিসেবে পথ চলা…

    1. আমিও তোমার সাথে নাই B|

      গেমের রূপ লাবন্য আর স্পন্দন খুজতে ব্যস্ত 😛

  1. দুর্দান্ত। আপনার শেখার আগ্রহ, সাধনা, পরিশ্রম অনুপ্রাণিত করার মত। শিখতে চেষ্টা করছি আপনার কাছ থেকে। আল্লাহ সহায় হোন।

  2. আপনার প্রতিটি লেখাই খুব ভাল লাগে । নতুন লেখার অপেক্ষায় থাকলাম ।

  3. Apni asholei chomotkar ek jon manush!!
    Apnar lekha amake prochur utshaho jogay!!
    TT thekei apnake follow kori!!
    TT te kono din comment kora hoy nai :/
    cz ami apnar thik ulto diker manush
    likhte oto ta valobashi na
    joto ta shunte ar porte valobashi

    tai ar comment kora hoy nai :/

    amake apnar ekjon boro fan o bolte paren kintu btw 😛

    Keep it up,,,

    and sorry for eng font!!

  4. সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে এক্সপ্লোর করতে। নতুন বিষয়। এ জন্য বার বার নিজের পাথ পরিবর্তন করি। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, এরপর অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, এরপর গেম ডেভেলপমেন্ট। কয়েক দিন থিম ডেভেলপমেন্ট, প্লাগইন ডেভেলপমেন্ট এর চেষ্টাও করেছি… এগুলো এক একটারও অনেক গুলো শাখা। কোনটাতেই এক্সপার্ট না, একটু আধটু জানি। একটু আধটু জানার পর নতুন বিষয় সম্পর্কে জানতে ইচ্ছে করে। জানার চেষ্টা করি। এখনো অনেক বিষয় সম্পর্কে জানতে অনেক আগ্রহ…আপনার মাঝে নিজের প্রতিচ্ছবি খুঁজে পেলাম।ভালো থাকবেন

  5. খুব সুন্দর লিখা ভাইয়া। মনটা ভরে গেল। এতো শিখার চেষ্টা আপনার। অনেক দোয়া রইল আপনার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *