এসো যা শিখি ভালো করে শিখি।

“৭ দিনে ফ্রিল্যান্সিং শিখুন” বা “এক মাসে ফ্রিল্যান্সিং শিখুন” টাইপের টাইটেল দেখে অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং শিখতে আগ্রহী হচ্ছে। অনেকেই হয়তো এসব ট্রেনিং সেন্টার থেকে ট্রেনিং ও নিয়েছে।

কিন্তু আসলেই কি ৭ দিনে শিখা যায়? ফ্রিল্যান্সিং কি, কি ভাবে করা যায়, কিভাবে অনলানে ক্যারিয়ার গড়া যায় এসব জানতে ৭ দিন লাগে না। কয়েক ঘন্টাই যথেষ্ট। কিন্তু!

কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য যে জ্ঞান লাগে, দক্ষতা লাগে, তা কি ৭ দিনে শিখা সম্ভব? ফ্রিল্যান্স বা অনলাইন ক্যারিয়ার করা এত সহজ না, এবং এখানে যথেষ্ট দক্ষতা, পরিশ্রম, এবং চর্চার ব্যাপার আছে। ৭ দিনে হয়ত বেসিক জ্ঞান অর্জন করা সম্ভব, তবে সফল হতে হলে মাসের পর মাস, এমনকি বছরের পর বছর ধরে চর্চা করতে হয়।

অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়ার ক্ষেত্রেও ফ্রিল্যান্সিং শিখা মূল কথা না। মূল কথা হচ্ছে একটা বিষয়ে দক্ষতা অর্জন এবং ঐ দক্ষতা কাজে লাগানো।

“৭ দিনে ফ্রিল্যান্সিং শিখুন” বা “৭ দিনে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট বা প্রোগ্রামিং শিখুন” এমন দেখলে মনে হয় সবার অনেক তাড়া। সবাই সব কিছু খুব দ্রুত করতে চায়। খুব দ্রুত শিখতে চায়। কিন্তু কিছু কি শিখতে পারে?

গবেষকরা (Bloom (1985), Bryan & Harter (1899), Hayes (1989), Simmon & Chase (1973)) দেখিয়েছে, কোন কিছুতে এক্সপার্ট হতে প্রায় দশ বছর সময় লাগে। এই কথাটা একটা বিশাল রেঞ্জের ফিল্ডের জন্যই সত্যি – দাবা খেলা, সঙ্গীতচর্চা, টেলিগ্রাফ অপারেশন, ছবি আঁকা, পিয়ানো বাজানো, সাঁতার, টেনিস কিংবা ধরো নিওরোসাইকোলজি এবং টপোলজি নিয়ে রিসার্চ করা।

এখানে সাফল্যের চাবি হচ্ছে স্বেচ্ছাকৃত প্র্যাকটিস: তাই বলে সেটা শুধু একই জিনিস বারবার করা না। নিজেকে ক্রমাগত চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি করা কঠিন থেকে কঠিনতর কাজ দিয়ে যেগুলো তোমার বর্তমান সামর্থ্যের বাইরে। তারপর সেই ধরণের কাজে অ্যাটেম্পট নেয়া উচিত। নিজের পারফরমেন্স বিশ্লেষণ করে, ভুল শুধরে, কিভাবে আরো ভালোভাবে সেটা করা যায় সেটা ভাবা উচিত। এবং তারপর উচিত পুনরায় এবং পুনরায় এই প্রসেস রিপিট করা।

সত্যি কথা, কোথাও কোন সহজ শর্টকাট নেই: এমনকি মোজার্ট, যাকে মাত্র ৪ বছর বয়সে মিউজিকাল প্রডিজি ভাবা হতো, তারও আরো ১৩ বছর লেগেছে তার প্রথম বিশ্বমানের সঙ্গীত রচনা করতে।

তাই আমাদের যাদের অনেক তাড়া, তারা ফ্রিল্যান্সিং হোক আর যাই হোক, কিছু শুরু করার আগে একটু ভাবি। আমার কি করা উচিত? আমার হাতে কি যথেষ্ঠ সময় আছে? আমি কি যথেষ্ট সময় দিতে পারবো? প্রশ্নের উত্তর গুলোর উত্তর না হলে এক সময় শিখার পরিবর্তে হতাশ হয়ে পড়বে।

ভালো করতে চাইলে যথেষ্ট সময় নিয়ে শুরু করা উচিত। জয় হোক স্বপ্নের 

লেখাটি গুগলের ডিরেক্টর অফ রিসার্চ – পিটার নরভিগ এর লেখা “Teach Yourself Programming in Ten Years” এর প্রতিফলন এবং কিছু অংশ সরাসরি ব্যবহার করা হয়েছে। লেখাটির বাংলা অনুবাদ করেছেন ইকরাম মাহমুদ। এখান থেকে তা পড়া যাবে এবং আগে না পড়া থাকলে পড়তে অনুরোধ করব। মূলত প্রোগ্রামিং নিয়ে লেখা হলেও যে কেউই পড়তে পারবে। http://www.progkriya.org/feature/norvig.html

One thought on “এসো যা শিখি ভালো করে শিখি।

Leave a Reply